30/01/2023 : 8:44 PM
আমার বাংলাদক্ষিণ বঙ্গপূর্ব বর্ধমানমেমারি

মেমারি পৌরশহরের যুবদের নিয়ে তৃণমূলের বাংলার যুবশক্তি

স্টাফ রিপোর্টার, মেমারিঃ করোনা ও আমফান আবহে রাজনৈতিক মোকাবিলা থেমে নেই। ২০২১ কে পাখির চোখ করে তৃণমূল-বিজেপি-বামেরা যে যার শক্তি বাড়িয়ে নেওয়ার প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে।

গত ১২ জুন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে বাংলার যুবশক্তি নাম দিয়ে এই ডিজিটাল ক্যাম্পেন শুরু হয়। মূলতঃ অরাজনৈতিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বলে প্রকাশ করা হলেও উক্ত তৃণমূলের যুব সংগঠন রাজ্যে ছাত্র যুবদের উজ্জিবীত করতেই এই ক্যাম্পেন লঞ্চ করেছে বলে সূত্রের খবর। যুব সংগঠনকে শক্তিশালী করতে নজর দেওয়া হচ্ছে ১৮ থেকে ৩৫ বছর পর্যন্ত বয়সীদের। অনলাইন রেজিষ্ট্রেশন কিংবা বিভিন্ন জেলায় ব্লক ও শহর কো-অর্ডিনেটরের মাধ্যমে যুক্ত হতে পারবেন যুবরা।

গত ১৫ জুন মেমারি শহরের চকদিঘী মোড় স্থিত তৃণমূল শ্রমিক ইউনিয়ন অফিসে আজ মেমারি শহরের বাংলার যুবশক্তির টিম গঠন করা হল। উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন মেমারি পৌরসভার প্রশাসক বোর্ডের সদস্য ও প্রাক্তন উপ-পৌর প্রধান সুপ্রিয় সামন্ত, মেমারি শহর তৃণমূল সভাপতি সৌরভ সাঁতরা, পূর্ব বর্ধমান জেলা যুব কার্যকরী সভাপতি শ্রীমন্ত রায়, পৌরসভার ১৪ নং ওয়ার্ডের প্রাক্তন কাউন্সিলর রঞ্জিত বাগ, তৃণমূল নেতা ও আইটিসেলের সদস‍্য প্রসূণ দাস, শুভেন্দু গুহ, সেখ ইউসুফ সহ অন্যান্য তৃণমূল নেতৃত্ব।

উক্ত সভায় প্রাক্তন উপ-পৌর প্রধান সুপ্রিয় সামন্ত তার স্বভাবসিদ্ধ বক্তব্যে জানান, তার রাজনৈতিক ভিত্তি প্রস্তর স্থাপিত হয়েছিল যুব বয়সে। দেশের যুবশক্তিই দেশের চালক। বর্তমান প্রজন্ম সোস্যাল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে মানুষের কাছে পৌঁছে যাচ্ছে। বাংলার যুবশক্তির মূল লক্ষ্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জনমুখী প্রকল্পগুলি প্রচার করা ও যারা বঞ্চিত হয়েছে তাদেরকে উক্ত প্রকল্পগুলির সুযোগ সুবিধার ব্যবস্থা করে দেওয়া।

মেমারি শহর যুব শক্তির কো-অর্ডিনেটর ও পূর্ব বর্ধমান জেলা যুব কার্যকরী সভাপতি শ্রীমন্ত রায় মেমারি শহরের যুব চেহারা তপোময় ঘোষ, সেখ সাহেব, পায়েল শেঠ, শিলাদিত‍্য সামন্ত ও ঋতম সু – এই পাঁচজন যুবককে নিয়ে তৈরি করলেন টিম বাংলার যুবশক্তি। উপস্থিত সকলকে তিনি বাংলার যুবশক্তির কর্মপদ্ধতি ও কার্যকলাপ সম্পর্কে বিস্তারিত জানান। তিনি বলেন মূলত অরাজনৈতিক সংগঠন হলেও আমাদের তৃণমূল অনুসারী অথবা সর্বোপরি বাংলাকে যারা ভালোবাসে সেইসব যুবক-যুবতীদের নিয়ে করোনা-লকডাউন-আমফানের প্রভাবে প্রভাবিত অসহায় মানুষদের জন্য সেবা কাজে ব্রতী হতে হবে।

তৃণমূল আইটিসেলের সদস্য ও যুবনেতা প্রসূণ দাস জানান যে, করোনা পরিস্থিতিতে পিএম কেয়ার ফান্ডের টাকা দেশের মানুষের কাজে না লাগিয়ে বিজেপি তার ভার্চুয়াল সভার মাধ্যমে  কোটি কোটি টাকা খরচ করছেন শুধু মাত্র রাজনৈতিক ক্ষমতা দখলের জন্য। বাংলাকে পাখির চোখ করে তারা বিজেপি আইটি সেলের মাধ্যমে বাংলা ও জননেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামে কুৎসা রটাচ্ছেন। ফেক ভিডিও তৈরি করে রাজ্যের প্রশাসনিক পদে আসীন ব্যক্তিত্বের টুইটার থেকে পোষ্ট করানো হচ্ছে। তৃণমূলের বাংলার যুবশক্তি বাংলার সম্মান মাটিতে মিশিয়ে দিতে দেবে না বলে সংকল্পবদ্ধ।

মেমারি শহর তৃণমূল সভাপতি সৌরভ সাঁতরা জানান যে, মেমারি পৌরশহরে ৩ জন রাজনৈতিক ও ২ অরাজনৈতিক যুবদের নিয়ে গঠিত বাংলার যুবশক্তির এই টিম বাংলা তথা মেমারি শহরের সুনাম অর্জন করবে বলে মনে করেন।

 

Related posts

নবগ্রামে নির্বাচনের ফল প্রকাশ হতেই ফের রাজনৈতিক সংঘর্ষের বলি ৩

E Zero Point

বিশ্ব নবীর জন্ম দিবস পালন মালদায়

E Zero Point

বিজেপি নেতা খোকন সেনকে বর্ধমান জেলা আদালতে তোলা হলো

E Zero Point

মতামত দিন