07/12/2022 : 7:46 AM
BREAKING NEWS
আমার বাংলাদক্ষিণ বঙ্গপূর্ব বর্ধমানমঙ্গলকোট

রাস্তা তৈরিকে কেন্দ্র করে মঙ্গলকোজালপাড়ায় গোলমাল

পরাগ জ্যোতি ঘোষ, মঙ্গলকোট: আজ মঙ্গলকোটে জাল পাড়ায় একটি পাকা রাস্তা নির্মাণকে কেন্দ্র করে এলাকা উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। জালপাড়া শ্মশান মোর থেকে বালিডাঙ্গা পর্যন্ত একটি কাঁচা রাস্তা পাকা করার কাজ চলছে। অনেকদিন ধরেই রাস্তাটির জন্য বালিডাঙ্গা গ্রামবাসী উন্মুখ হয়ে রয়েছে।লক ডাউন এর জন্য কাজ বন্ধ ছিল ।লকডাউন একটু শিথিল হওয়ার সাথে সাথেই কাজ শুরু হয়েছে জোরকদমে। কিন্তু শ্মশান মোড়ের একটু আগেই রাজু দাস এর বাড়ির পাশ দিয়ে রাস্তা করার সময় তার পরিবার ও জালপাড়া গ্রামবাসীরা অভিযোগ করেন যে তার জায়গার উপর দিয়ে জোর করে রাস্তা করার চেষ্টা করা হচ্ছে । তাই তারা কাজ করতে বাধা দেন। এদিকে এদিন প্রায় বালিডাঙ্গা গ্রাম থেকে ৫০০ মানুষ ওই জায়গায় জড়ো হন । তাদের বক্তব্য বড় কাজ হতে গেলে একটু ক্ষতি স্বীকার সকলকে করতে হবে ।সেসময় জেসিপি দিয়ে রাজু দাস এর জায়গায় কিছুটা অংশ জেসিপির ড্রাইভার চেচে
দেন ।আর তা থেকেই শুরু হয় গোলমাল ।রাজু দাস পেশায় ড্রাইভার ।সে বাড়িতে ছিল না ।তার স্ত্রী অভিযোগ করেন তারা গরীব মানুষ। এই জায়গাটি তারা কিনেছেন স্থানীয় এক ব্যক্তির কাছ থেকে বাড়ি করবে বলে ।তাছাড়া এটা রাস্তার মধ্যে পড়ে না। রাস্তার অংশ পাশের মোড়ল দীঘির মধ্যে চলে গেছে অনেকখানি। তাহলে কেন তারা পুকুরটিকে বাঁধিয়ে রাস্তাটিকে বাড়াচ্ছেন না। কোন ধনী ব্যক্তির পক্ষে ক্ষতি স্বীকার করা হয়তো সম্ভব হয় কিন্তু তাদের মতো দিন আনি দিন খাই পরিবারের পক্ষে কেনা জায়গা দেওয়া সম্ভব নয় একথা কিছুতেই বুঝতে চাইছেন না বালি ডাঙ্গার মানুষরা।

ঘটনাস্থলে দুই গ্রামের মানুষজন এর মধ্যে বাকবিতণ্ডা চলে কিন্তু সিভিক পুলিশ ও এলাকার শুভবুদ্ধি সম্পন্ন মানুষদের মধ্যস্থতায় বিষয়টি মীমাংসা হয়ে যায় ।বালিডাঙ্গা গ্রামের পিন্টু ঘোষ বলেন অনেক কষ্ট করে তারা এই রাস্তাটি পাকা করার অর্ডারটি বের করেছেন ।তাদের এই কাজে সবথেকে বেশি সাহায্য করেছেন তাদের গ্রামের জেলা পরিষদের কর্মী নীলোৎপল মন্ডল এবং গোতিষ্ঠা গ্রামের তৃণমূল নেতা মনু ঘোষ ।দলমত নির্বিশেষে গ্রামের সকল মানুষই চান এই রাস্তাটি হোক। কারণ তিনি জানেন তাদের গ্রামের ছেলে মেয়েদের বিদ্যালয়ে আসতে বা মানুষজনদের বাইরে যেতে কত কষ্ট হয় তাছাড়া রাস্তা হলে দুটো গ্রামের মানুষদের উপকার হবে। আরও জানান রাজু দাস ভালো ছেলে, তারাও জানেন রাজু অভাবী মানুষ। তাই তারাও চান না রাজুর কোন ক্ষতি করে রাস্তাটি তৈরি করতে। কিন্তু কিছু ভুল বোঝাবুঝির জন্যই এই বাকবিতণ্ডা তৈরি হয়েছিল। এবং তা মিটে
গেছে ।রাস্তাটির কাজ আবার পুরোদমে শুরু হয়েছে।

Related posts

ভ্যাকসিনের ভুয়ো কুপনের অভিযোগ, ধুন্ধুমার মেমারিতে

E Zero Point

টানা বৃষ্টির কারনে বাড়ছে মহানন্দা নদীর জল

E Zero Point

স্বনির্ভর গোষ্ঠীগুলিকে সহজ শর্তে ১০ লক্ষ টাকা ঋণ ঘোষণা রাজ্যের

E Zero Point

মতামত দিন