09/07/2020 : 10:33 PM
BREAKING NEWS
আমার দেশ শিক্ষা

ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে বিশ্বে এই প্রথম প্রোগ্রামিং ও ডেটা বিজ্ঞান বিষয়ে অনলাইন বি.এস.সি ডিগ্রীর সূচনা ভারতে

বিশেষ সংবাদঃ কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী শ্রী রমেশ পোখরিয়াল ‘নিশঙ্ক’ আজ ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে বিশ্বে প্রথম, প্রোগ্রামিং ও ডেটা বিজ্ঞান বিষয়ে অনলাইন বি.এস.সি ডিগ্রীর সূচনা করেছেন, তার সঙ্গে ছিলেন মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী শ্রী সঞ্জয় ধোত্রে। এই শিক্ষা কর্মসূচিটি  ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি মাদ্রাজ প্রস্তুত করেছে, ২০২০- র এন.আই.আর.এফ ক্রমপর্যায়ে, ভারতে এই প্রতিষ্ঠান প্রথম স্থানে রয়েছে। এই কোর্সটি দশম শ্রেণিতে ইংরেজি এবং গণিত সহ দ্বাদশ শ্রেণিতে উত্তীর্ণ এবং যে কোনও অন-ক্যাম্পাস ইউজি কোর্সে ভর্তি হয়েছে এমন শিক্ষার্থী, সকলের জন্য উন্মুক্ত। আইআইটি, মাদ্রাজের চেয়ারম্যান পবন কুমার গোয়েঙ্কা, আইআইটি, মাদ্রাজের পরিচালনা পর্ষদ, পরিচালক এবং আইআইটি শিক্ষকরা, চেয়ারম্যান, এআইসিটিইর চেয়ারম্যান প্রফেসর ডঃ অনিল সহশ্রবুধে, এমএইচআরডি অতিরিক্ত সচিব, শ্রীরাকেশ রঞ্জনানন্দ এবং মন্ত্রকের উর্ধ্বতন আধিকারিকরা  উদ্বোধনে  উপস্থিত ছিলেন।

ডেটা সায়েন্স বিষয়টিতে বর্তমানে ক্রমবর্ধমান চাহিদা লক্ষ্য করা গেছে, এই ক্ষেত্রে ২০২৬ সালের মধ্যে ১১.৫ মিলিয়ন কর্মসংস্থান তৈরির পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। বৃহত্তর স্তরে উচ্চমানের শিক্ষার জন্য অনলাইন কোর্সগুলি দ্রুতগতিতে  জনপ্রিয় হওয়ার একটি প্রবণতা বর্তমানে লক্ষ্য করা গেছে। আইআইটি মাদ্রাজের শিক্ষকরা  অনলাইন শিক্ষার পদ্ধতি ব্যবহার করে এই ক্ষেত্রটির প্রয়োজনীয়তার দিকে নজর দিচ্ছেন এবং একটি অন্তর্ভুক্তিমূলক এবং সাশ্রয়ী শিক্ষার মডেল উপস্থাপন করছেন যা আইআইটির বিস্তৃতিকে সুনিশ্চিত করবে।

অংশগ্রহণকারীদের উদ্দেশ্যে ভাষণে  শ্রী পোখরিয়াল বিশ্বের প্রথম অনলাইন ডেটা সায়েন্স এবং প্রোগ্রামিং বিষয়ে বি.এস.সি. ডিগ্রী চালু করার জন্য আইআইটি মাদ্রাজের দলটিকে অভিনন্দন জানান। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জানান, যেসব পরিক্ষার্থী ২০২০ তে দ্বাদশ শ্রেনীর পড়াশুনা শেষ করেছেন তারা এই কোর্সে পড়াশুনার জন্য আবেদন করতে পারেন। স্নাতক এবং কর্মরত-রাও এতে আসতে পারেন। শ্রী পোখরিয়াল আরো জানিয়েছেন যে, এই অনন্য কোর্সটি বয়স, বিভাগ বা ভৌগলিক অবস্থানের সমস্ত বাধা অপসারণ করে এবং ডেটা সায়েন্স বিষয়ে দক্ষ বিজ্ঞানীদের বিশাল চাহিদা পূরণের জন্য একটি বিশ্ব-মানের পাঠ্যক্রমের সূচনা করেছে।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জানিয়েছেন যে আইআইটি মাদ্রাজে অবিচ্ছিন্ন উদ্ভাবন এবং সাফল্যের সমৃদ্ধ ইতিহাস রয়েছে এবং এনআইআরএফ ক্রমপর্যায়ে প্রথম স্থান অধিকার করেছে, এই র‍্যাঙ্কিং ধারাবাহিকভাবে প্রতিষ্ঠানের সদস্যদের প্রতিভা, লক্ষ্য এবং দৃষ্টিভঙ্গিকে নির্দেশ করে। বিশ্লেষণ থেকে জানা যায় যে প্রতি বছর সাত থেকে সাড়ে সাত লাখ ভারতীয় শিক্ষার্থী উন্নত শিক্ষার সন্ধানে বিদেশে যান এবং আমাদের মেধার পাশাপাশি আমাদের রাজস্বও দেশের বাইরে চলে যায়। আইআইটি মাদ্রাজের মতো প্রতিষ্ঠানগুলি ভারতে এই জাতীয়  উচ্চমানের শিক্ষা এবং অনন্য পাঠ্যক্রমগুলির সূচনা করে জাতিকে স্বনির্ভরতার পথে এগিয়ে যেতে সহায়তা করার লক্ষ্য তৈরী করেছে। এমনকি এই সঙ্কটের সময়ে, যখন দেশ কোভিড -১৯ মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াই করছে এবং সবাই ঘরে বসে থাকতে বাধ্য হচ্ছে, তখন আইআইটির মত সংস্থা জাতির স্বার্থে উদ্ভাবনের জন্য একত্রিত হওয়ার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে।

শ্রী পোখরিয়াল বলেছেন যে বর্তমানে ভারতে যে কোনও শিক্ষার্থী বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হয়েছেন বা ক্লাস করছেন তারাও পেশা বা কোর্স পরিবর্তন না করেই এই ডিগ্রি প্রোগ্রামটি গ্রহণ করতে পারেন। এমনকি নিয়োগকর্তারাও তাদের কর্মীদের মানোন্নয়নে এবং একইসঙ্গে কাজের সময় ও উৎপাদন শীলতার ক্ষতি না করে এধরনের কোর্স করতে কর্মীদের উৎসাহিত করতে পারেন। তিনি আরও বলেছেন যে এই কোর্সটি লাভজনক ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের চাকরির সম্ভাবনা উজ্জ্বল করতে সাহায্য করবে, কর্মজীবী পেশাদারদের পেশা পরিবর্তন করার সুযোগ দেবে এবং আইআইটি মাদ্রাজের মতো স্বীকৃত প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে ডিগ্রি অর্জনের সুযোগও তৈরী করবে।

কোর্সটি চালু হওয়ার জন্য আইআইটি মাদ্রাজের দলকে অভিনন্দন জানিয়ে শ্রীধোত্রে বলেন যে আজকের বিশ্বে শিক্ষা একটি ধারাবাহিক প্রক্রিয়া। ছাত্র এবং পেশাদারদের প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে এবং সময় ও জায়গার সীমাবদ্ধতার মধ্যে কাজ করায় সহায়তা করার জন্য নিজেদের জ্ঞানের উন্নয়ন জরুরি। চলতি কোভিড পরিস্থিতির কারণে এটি আরও চ্যালেঞ্জিং হয়ে উঠেছে বলে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন যে ডেটা বিজ্ঞান এবং প্রোগ্রামিং-এর জন্য এই সময়কাল সর্বাধিক উল্লেখযোগ্য বিকাশের ক্ষেত্র বলে বিবেচিত হচ্ছে এবং এই গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্রে অনলাইন ডিগ্রির মাধ্যমে আইআইটি মাদ্রাজ আরও অনেক শিক্ষার্থীর কাছে পৌঁছাতে সক্ষম হবে। এই বিশেষ কোর্সটি শিক্ষার্থীদের কাছে নতুন নতুন দিক খুলে দেবে এবং দেশবাসীর কাছে এটি অমূল্য বলে বিবেচিত হবে বলে তিনি মত প্রকাশ করেছেন।

কোর্সটি একটি অত্যাধুনিক অনলাইন পোর্টালের মাধ্যমে পাওয়া যাবে এবং ভারতের প্রত্যন্ত অঞ্চলের এমন শিক্ষার্থীদের আকর্ষণ করবে যেখানে ডিজিটাল সাক্ষরতার প্রসার খুব কম এবং পেশাগত জীবনে তাদের এগিয়ে যেতে উৎসাহিত করবে। অনলাইন লার্নিং প্ল্যাটফর্মটি থেকে ক্লাসে শেখার মতো করেই শিক্ষাগ্রহণ সম্ভব, তার  জন্য প্রোগ্রামটিতে শিক্ষকরা ভিডিওর মাধ্যমে সাপ্তাহিক অ্যাসাইনমেন্ট প্রদান করবেন এবং স্বতন্ত্র পরীক্ষার ব্যবস্থাও এখানে থাকছে। কোর্সটিতে শিক্ষার্থীদের ডেটা ব্যবহার করে ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানগুলিকে বিভিন্ন পরামর্শ প্রদান করার মডেল তৈরীর শিক্ষা দেওয়া হবে।

এই অনন্য অনলাইন কোর্সটির তিনটি পর্যায় রয়েছে – ফাউন্ডেশনাল প্রোগ্রাম, ডিপ্লোমা প্রোগ্রাম এবং ডিগ্রি প্রোগ্রাম। কোর্সের শেষে শিক্ষার্থীদের আইআইটি মাদ্রাজের শংসাপত্র প্রদান করা হবে। পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার জন্য ছাত্রছাত্রীদের তিন হাজার টাকা ফি সহ একটি ফর্ম ফিল আপ করতে হবে। শিক্ষার্থীরা ৪ টি বিষয়ের (গণিত, ইংরেজি, পরিসংখ্যান এবং গণনাগত চিন্তাভাবনা) ৪ সপ্তাহের জন্য শিক্ষাসামগ্রী পাবে। এই শিক্ষার্থীরা অনলাইনে শিক্ষাগ্রহণ করবে, অনলাইনে অ্যাসাইনমেন্ট জমা দেবে এবং ৪ সপ্তাহ শেষে একটি ব্যক্তিগত যোগ্যতা পরীক্ষায় বসবে। এই প্রক্রিয়াটি আইআইটি র ভর্তি প্রক্রিয়ার বিপরীত যেখানে সীমিত সংখ্যার কারনে স্বল্পসংখ্যক ছাত্রছাত্রী এধনের প্রতিষ্ঠানগুলিতে পড়ার সুযোগ পায়, সেখানে যোগ্যতা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া (সামগ্রিক ৫০% নম্বর সহ) সমস্ত ছাত্রছাত্রী এই কোর্সটিতে ভর্তি হতে পারবে।
বিষদ জানার জন্য লগ অন করুন www.onlinedegree.iitm.ac.in

Related posts

১২৫তম সিআইআই-এর বার্ষিক সভায় উদ্বোধনী ভাষণ দেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

E Zero Point

তামিলনাডুতে আবাসন ক্ষেত্রের প্রকল্পর জন্য কেন্দ্র ও বিশ্ব ব্যাঙ্কের মধ্যে চুক্তি সম্পাদন

E Zero Point

প্রসঙ্গ চীনঃ স্বদেশী পণ্য নির্ভর অর্থনীতি তৈরিতে একজন সাধারণ ক্রেতার ভূমিকা

E Zero Point

মতামত দিন