04/02/2023 : 2:03 AM
আমার দেশ

১০টি রাজ্যে করোনা সংক্রমণের হার উর্ধমুখী

জিরো পয়েন্ট নিউজ ডেস্ক, দিল্লী, ১০ এপ্রিল ২০২১:


দেশে কোভিড – ১৯ প্রতিরোধে মোট ৯,৮০,৭৫,১৬০টি টিকার ডোজ দেওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে ৮৯,৮৮,৩৭৩ জন স্বাস্থ্যকর্মী টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন। দ্বিতীয় ডোজটি নিয়েছেন ৫৪,৭৯,৮২১ জন। সামনের সারির করোনা যোদ্ধাদের মধ্যে ৯৮,৬৭,৩৩০ জনকে প্রথম ডোজ এবং ৪৬,৫৯,০৩৫ জনকে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে। ষাটোর্ধ নাগরিকদের মধ্যে ৩,৮৬,৫৩,১০৫ জনকে প্রথম ডোজ এবং ১৫,৯০,৩৮৮ জনকে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে। ৪৫ – ৬০ বছর বয়সী নাগরিকদের মধ্যে ২,৮২,৫৫,০৪৪ জনকে প্রথম ডোজ এবং ৫,৮২,০৬৪ জনকে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে। দেশে যত জন কোভিড টিকা পেয়েছেন, তার মধ্যে ৬০.৬২ শতাংশ ৮টি রাজ্যের বাসিন্দা। ৯ই এপ্রিলে ৩৪,১৫,০৫৫টি টিকার ডোজ দেওয়া হয়েছে। সারা বিশ্বে টিকাকরণের নিরিখে ভারত, প্রথম স্থানে আছে।  গড় হিসেবে দৈনিক ৩৮,৯৩,২৮৮টি টিকার ডোজ দেওয়া হয়েছে।

ভারতে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ১,৪৫,৩৮৪ জন সংক্রমিত হয়েছেন। নতুন যারা সংক্রমিত হয়েছেন, তাদের মধ্যে ৮২.৮২ শতাংশ ১০টি রাজ্যের বাসিন্দা। যে ১০টি রাজ্যে নতুন সংক্রমণের হার সবথেকে বেশি সেগুলি হল – মহারাষ্ট্র (দৈনিক সংক্রমণ ৫৮,৯৯৩), ছত্তিশগড় (দৈনিক সংক্রমণ ১১,৪৪৭), উত্তরপ্রদেশ (দৈনিক সংক্রমণ ৯৫৮৭), দিল্লি, কর্ণাটক, তামিলনাডু, কেরালা, মধ্যপ্রদেশ, গুজরাট ও রাজস্থান।

ভারতে এই মুহুর্তে চিকিৎসাধীন ১০,৪৬,৬৩১ জন। দেশে এপর্যন্ত যতজন সংক্রমিত হয়েছেন, তার ৭.৯৩ শতাংশ বর্তমানে চিকিৎসাধীন। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ৬৭,০২৩ জন সংক্রমিত হয়েছেন। মহারাষ্ট্র, ছত্তিশগড়, কর্ণাটক, উত্তরপ্রদেশ এবং কেরালায় দেশে মোট সংক্রমণের ৭২.২৩ শতাংশ ঘটনা ঘটেছে। চিকিৎসাধীনের মধ্যে মহারাষ্ট্রেই রয়েছে ৫১.২৩ শতাংশ। চিকিৎসাধীন সংক্রমিতদের মধ্যে ৪৫.৬৫ শতাংশ ১০টি জেলায় বাস করে।

ভারতে মোট আরোগ্য লাভ করেছেন ১,১৯,৯০,৮৫৯ জন। জাতীয় আরোগ্যের হার ৯০.৮ শতাংশ। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে কোভিড মুক্ত হয়েছেন ৭৭,৫৬৭ জন। সংক্রমিতদের দৈনিক মৃত্যুর হার উর্ধমুখী। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ৭৯৪ মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে ৮৬.৭৮ শতাংশ ১০টি রাজ্যের বাসিন্দা ছিলেন। মহারাষ্ট্রের ৩০১ জন এবং ছত্তিশগড়ের ৯১ জন সংক্রমিত গত ২৪ ঘন্টায় মারা গেছেন। এই সময়ে ১২টি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে সংক্রমিতদের মৃত্যুর খবর পাওয়া যায় নি। এই রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি হলঃ – পুডুচেরি, লাদাখ, দাদরা – নগর হাভেলি – দমন – দিউ, নাগাল্যান্ড, ত্রিপুরা, মেঘালয়, সিকিম, মিজোরাম, মণিপুর, লাক্ষাদ্বীপ, আন্দামান ও নিকোবর এবং অরুণাচল প্রদেশ।

Related posts

ব্যবসা এবং অর্থনীতিতে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করবে আরোগ্য সেতু অ্যাপ

E Zero Point

২০২০ সালে জন প্রশাসনে উৎকর্ষতার জন্য প্রধানমন্ত্রীর পুরস্কার

E Zero Point

উত্তর পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলি থেকে যুবকদের স্থানান্তর যাত্রা

E Zero Point

মতামত দিন