03/02/2023 : 8:57 AM
অন্যান্য

নির্ভয়ার হয়ে বিনা পারিশ্রমিকে মামলা লড়া আইনজীবী সীমা কুশওয়াহা : আমাদের সকলের গর্ব

গত ৭ বছর নির্ভয়ার দোষীদের শাস্তি দিতে নিরন্তর লড়াই চালিয়েছেন এই আইনজীবী

নির্ভয়ার গণধর্ষণ ও হত্যার দায়ে দোষী সাব্যস্ত মুকেশ, অক্ষয়, বিনয় এবং পবনকে শুক্রবার ভোরেই ফাঁসিতে ঝুলিয়ে দেওয়া হল, স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলল গোটা দেশ। গত সাত বছর ধরে আইনের লড়াই চালিয়ে যেতে হয়েছে নির্ভয়ার বাবা-মাকে, দিতে হয়েছে ধৈর্য্যের পরীক্ষাও। অবশেষে ন্যায়বিচার পেলেন নির্ভয়া  । ফাঁসির একদিন আগে বৃহস্পতিবারও দিল্লি হাইকোর্ট এবং সুপ্রিম কোর্টও আবেদন করে বাঁচার চেষ্টা করে অপরাধীরা। কিন্তু তাদের সেই চেষ্টা বিফলে যায়। নজিরবিহীনভাবে একসঙ্গে ৪ আসামিকে ফাঁসিতে ঝোলানো হয় দিল্লির তিহার জেলে।

কে এই সীমা কুশওয়াহা ? ইনি সেই মহিলা আইনজীবী  যিনি গত ৭ বছর ধরে ন্যায়বিচারের জন্যে আদালতে যুক্তিতর্কের লড়াই করেছেন। ইনি সেই আইনজীবী যিনি নিজের পেশার খাতিরে নয়, দীর্ঘদিন এই মামলা লড়েছেন শুধু মানবিকতার খাতিরে। গত ৭ বছর ধরে নির্ভয়ার পরিবারের সুখদুঃখের সঙ্গী ছিলেন তিনি। না, নির্ভয়ার বাবা-মায়ের কাছ থেকে মামলা লড়ার জন্যে একটি টাকাও পারিশ্রমিক নেননি তিনি। উত্তরপ্রদেশে জন্ম সীমা কুশওয়াহা দিল্লী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইন নিয়ে পড়াশুনা করেছেন।

কথায় বলে “ভাগ্য সাহসীদের সঙ্গে থাকে”। সেই প্রবাদ মেনেই শুক্রবার সাফল্যের হাসি হাসেন আইনজীবী সীমা কুশওয়াহা। নির্ভয়া মামলার ৪ আসামিকে ফাঁসিতে ঝোলানোর সঙ্গে সঙ্গে  অসংখ্য মানুষ অভিনন্দনের বন্যায় ভাসিয়ে দিয়েছেন ওই আইনজীবীকে। তিহার জেলে ফাঁসি কার্যকর হওয়ার পর সীমা কুশওয়াহাকে সবচেয়ে আগে অভিনন্দন জানান নির্ভয়ার মা আশা দেবী। তিনি বলেন ওই আইনজীবী ছাড়া এই যুদ্ধে জেতা সম্ভব হতো না তাঁদের পক্ষে।

Related posts

|| সম্পাদকীয় || জনতা কার্ফুঃ বৈকাল ৫টায় ৫ মিনিট হাততালি দিয়ে কৃতজ্ঞতা জানান

E Zero Point

সুন্দরবনের মানব ও বন্য সংঘর্ষ এবং প্লাস্টিক দূষণ প্রধান সমস্যার স্থায়ী সমাধানের উদ্যোগ

E Zero Point

সাধারণ ভুল যেগুলো রমজানের সময় আমরা করে থাকি – দ্বিতীয় পর্ব

E Zero Point