30/01/2023 : 8:24 PM
আমার বাংলাকালনাদক্ষিণ বঙ্গপূর্ব বর্ধমান

বাড়ি বাড়ি ফুড-কুপন পৌঁছানোর বাহকরাই নিরন্ন

জিরো পয়েন্ট নিউজ – আলেক শেখ, কালনা, ১০ অগাস্ট ২০২০:


যারা গরিব-দুঃস্থ মানুষের  বাড়ি বাড়ি সরকারি ফুড-কপন পৌঁছে দেন, তারাই অভিযোগ তুলেছেন আমরা খেতে পাইনা। শুধু অভিযোগ  তুলেই তাঁরা থেমে নেই। তাঁদের নির্দিষ্ট  কয়েকটি দাবির ভিত্তিতে তাঁরা সোমবার কালনা-২  বিডিওকে  স্মারকলিপি দেন।  এরা বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পের কাজ গ্রামে ঘুরে ঘুরে করেন। রাজ্য সরকারের দেওয়া এদের পোশাকি নাম ভিআরপি বাংলায় বলা হয় গ্রামীন সম্পদ কর্মী।  ঢাল নেই, তরোয়াল নেই এ যেন এক একজন নিধিরাম সর্দ্দার। পশ্চিমবঙ্গে এই রকম নিধিরাম সর্দ্দারের সংখ্যা পঁচিশ হাজার।  সম্পদ কর্মী ইউনিয়নের পূর্ব বর্ধমান জেলা কমিটির সহ সম্পাদক ফারুক উল ইসলাম জানান– সরকারি নিয়োগ পরীক্ষার  রীতি নীতি মেনেই আমরা  ২০১৫-১৬ সালে সম্পদ কর্মী হিসাবে কাজে যোগ দিই।  সেই থেকেই আমরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে সরকারের বিভিন্ন কাজ করে থাকি।  এই করোনা অাবহে সংকটজনক পরিস্থিতিতে সমস্ত মানুষ যখন ভয়ে ঘরবন্দি, সেই সময় সারা বাংলা জুড়ে আমরা বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে মহামারী করোনা ভাইরাস ও ডেঙ্গির বিরুদ্ধে লড়াই  চালাচ্ছি।  তবুও আমাদের  কোন রকম সুরক্ষা ও জীবন বীমা নেই।   যৎসামান্য মাত্র ৩ হাজার ৫০০ টাকা মাসিক ভাতায়  কর্তব্যপালনে আমরা একেবারে  অবিচল।  আমাদের দাবি আমরা যাতে পরিবার নিয়ে দুবেলা  ডাল-ভাত  মুখে তুলতে পারি,  তার ন্যূনতম ভাতার ব্যবস্থা করা। এই ব্যাপারে ইতিমধ্যেই মুখ্যমন্ত্রী, নবান্ন, পঞ্চায়েত দপ্তর, স্বাস্থ্য দপ্তর সহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে আমাদের আবেদন পত্র পাঠিয়েছি।  তার পরিপ্রেক্ষিতে মুখ্যমন্ত্রী আশ্বাস দিয়েছিলেন– ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের পরেই গ্রামীন সম্পদকর্মীদের একটা সিস্টেমের মধ্যে এনে সম্মানজনক মাসিক বেতনের ব্যবস্থা করা হবে।  কিন্তু সেই সিস্টেমে এখনো পর্যন্ত চালু হয়নি। তাই আজ কালনা-২ ভিডিওকে  নির্দিষ্ট কয়েকটি দাবি সম্বলিত স্মারকলিপি দেওয়া হল। দাবিগুলো হলো–মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি মতো সিস্টেম চালু করে মাসিক ন্যূনতম বেতনের ব্যবস্থা করা হোক।  একশো শতাংশ সামাজিক নিরীক্ষার কাজে নিযুক্ত করতে হবে।   কর্ম নিশ্চিয়তা প্রদান ও স্থায়িকরন করতে হবে।  ডেঙ্গুর ও করোনা মোকাবিলায় যথাযথ সুরক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে।    স্বাস্থ্যবিমা  ও  জীবন বিমার  আওতায় আনতে হবে।  সরকারি কর্মচারীর সমমর্যাদা দিতে দিতে।   স্মারকলিপি নিয়ে বিডিও সাহেব উর্ধতন কর্তৃপক্ষের  দৃষ্ট আকর্ষণ করার আশ্বাস দেন। গ্রামীন সম্পদ কর্মী ইউনিয়নের  কালনা-২  ব্লক সম্পাদক সন্দীপ দাস  ক্ষোভের সাথে বলেন– আমাদের ব্যাপারে সরকার বড় উদাসীন।

Related posts

মুর্শিদাবাদের সামসেরগঞ্জে নদী ভাঙ্গনে নিঃস্ব ধানঘড়াবাসী

E Zero Point

গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হলো এক মেমারির দেবীপুরের যুবক

E Zero Point

পূর্ব মেদিনীপুর জেলা শাসকের দফতরে চতুর্থ তলায় আগুন

E Zero Point

মতামত দিন