16/01/2021 : 5:17 PM
জীবন শৈলী ধর্ম -আধ্যাত্মিকতা

আধ্যাত্বিক চেতনাবোধ ঘুরে দাঁড়ানোর একমাত্র পথ ভারতবাসীর

পরাগ জ্যোতি ঘোষ


“ধর্ম নাই নেতা যেই /যমের দালাল হয়তো সেই”- এটা আমার কথা নয় –যুগপুরুষোত্তম শ্রী শ্রী ঠাকুর অনুকূল চন্দ্রের এক অমোঘ বাণী । একথা শুনে হয়তো অনেক তথাকথিত অর্ধশিক্ষিত বিদগ্ধজনেরা ভ্রু কুচকাবেন । কিন্তু তাদের উদ্দেশ্যে নির্দ্বিধায় বলা যেতে পারে তারা ধর্ম শব্দটির প্রকৃত অর্থ জানেন না, বা জানলেও এর বাস্তবিক প্রয়োগ পদ্ধতি তাদের জানা নয় । ধর্ম শব্দের অর্থ ধারন করা । সারা বিশ্বের ধর্ম একটাই তা হলো সৎ মানুষদের সত্তা কে জাগানো এবং তা পারিবারিক, সামাজিক এবং রাষ্ট্রীয় ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠা করা ।আজকের সমাজে নেতা বলতে আমরা অধিকাংশ ক্ষেত্রেই যাদের দেখি তারা হলেন ব্যক্তিস্বার্থ চরিতার্থ কারি একদল নপুংসকের দল। তাদের না আছে কোন চরিত্র, না আছে কোন জীবন্ত আদর্শের অনুসরণ।

আর তার ফলশ্রুতি রূপে সমাজ হয়ে পড়েছে এক পঙ্কিল আবর্জনায় পরিণত ।এর জন্য শুধু যে তাদের দোষ দেওয়া যায় তা নয়। স্বাধীনতা পরবর্তী যুগে সেভাবে সৎ মানুষেরা এগিয়ে আসেননি রাষ্ট্রের ভার নিতে ।ফলে দুর্নীতি ,দাঙ্গাবাজ, অসৎ মানুষে ভরে গেছে ভারতবর্ষের রাজনৈতিক বাতাবরণ। এখন তো এমন অবস্থা ঠগ বাছতে গাঁ উজাড় ।অনেকটা কম্বলের লোম বাঁচতে গিয়ে কম্বল উবে যাওয়ার অবস্থা ।ভারত মাতার ক্রন্দনধ্বনি আকাশে বাতাসে ধ্বনিত হচ্ছে।

কিন্তু কে শোনে কার কথা। বিভিন্ন রাজনৈতিক দল গুলি নিজেদের মধ্যে চাপান-উতোর করতেই সদা ব্যস্ত অথচ সংশোধনের কোন পথই অনুসরণ করেন না ।আসলে সেই পথের দিশা এক মাত্র দেখাতে পারে সঠিক ধর্মীয় অনুশাসন ।”এক আদেশে চলে যারা/তাদের নিয়েই সমাজ গড়া “।মান্যতার ইতিহাস তৈরি না হলে ভেঙেচুরে যাবে ভারতবর্ষের সার্বভৌমত্ব ।স্বামী বিবেকানন্দের আদর্শ ব্রহ্মচর্যাশ্রম পুনরায় ফিরিয়ে আনতে হবে । যুব সমাজকে উদ্বুদ্ধ করতে হবে ।তাহলেই উদ্বোধন ঘটতে পারে চেতনার ।

আর তা না হলে তন্ত্র-মন্ত্রে গাঁজা মদ হেরোইনের নেশায় বুঁদ হয়ে হারিয়ে যাবে সনাতন শাশ্বত সেই ঋষিদের সন্তানেরা ।মানুষ তৈরীর কারখানা হোক সারা ভারত জুড়ে। সেখানে হবে চতুরাশ্রম ।আর তারা বলবে “দাও ফিরে সে অরণ্য /লহ এ নগর”। আজ বাঁচতে চায় সকলেই ।এক করোনাই সেটা বুঝিয়ে দিয়েছে হাড়ে হাড়ে। তবুও কি আমরা গোঁড়া খুঁজবো না ।আবার সেই রসাতলে গড়াগড়ি খাবো। এখনো সময় আছে সমাজের কোণে কোণে ছড়িয়ে দিতে হবে চেতনাবোধের আগুন। হোক সৎ চেতনার জীবন্ত ঈশ্বর এর সাধনা ।তাহলে হয়তো বেঁচে যেতে পারে উপরওয়ালার সাজানো বাগান ।আর তা না হলে “মনে রেখো শেষের সেদিন বড়ই ভয়ংকর”।

Related posts

রান্নাঘরঃ ভাপা ডিমের কালিয়া

E Zero Point

‘কোভিড পরিস্থিতিতে মানসিক স্বাস্থ্য’ -শান্ত থাকুন, অযথা আতঙ্কিত হবেন না

E Zero Point

স্ট্রোক কি বাথরুমে স্নানের সময় বেশি হয়?

E Zero Point

মতামত দিন