28/11/2022 : 4:31 PM
BREAKING NEWS
আমার বাংলা

ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় অনুব্রতের  আইনী রক্ষাকবচ ‘সাময়িক’ বহাল, হোঁচট খেল সিবিআই 

জিরো পয়েন্ট নিউজ-মোল্লা জসিমউদ্দিন, কলকাতা, ১৯ অক্টোবর ২০২২:


মঙ্গলবার দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দিল – ‘ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় সিবিআইয়ের পিটিশনের পূর্নাঙ্গ শুনানি না হওয়া অবধি সিবিআই কড়া পদক্ষেপ নিতে পারবেনা অনুব্রত মন্ডলের ওপর ‘।অর্থাৎ বীরভূমের দাপুটে নেতা অনুব্রত মন্ডলের ওপর  আপাতত বহাল কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের আইনী রক্ষাকবচ টি।এতে স্বস্তি পেলেন অনুব্রত। ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় অনুব্রত কে সুপ্রিম কোর্টে  নিজেদের হেফাজতে রাখার আবেদন জানিয়েছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই। গত ১০ অক্টোবর এই মামলার শুনানি হলেও নির্দেশদান স্থগিত রেখেছিল সুপ্রিম কোর্ট। এই মামলার পিটিশনকারী তথা কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআইয়ের আর্জিতে পিছিয়ে গিয়েছিল পরবর্তী শুনানি তা একসপ্তাহের মত।

supreme court

প্রথম শুনানি তে যদিও সিবিআইয়ের তরফে একদিনের সময়সীমা চাওয়া হয়েছিল  আদালতের কাছে ।তবে সুপ্রিম কোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ তা এক সপ্তাহের সময়সীমা বেঁধে দিয়েছিল ।এই মামলার পরবর্তী শুনানি হয় এদিন। ইতিমধ্যেই গরু পাচার মামলায় সিবিআইয়ের তদন্তে জেল হেফাজতে আসানসোল জেলখানায় রয়েছেন বীরভূমের দাপুটে নেতা অনুব্রত মন্ডল। এই মামলায় আরেক কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা ইডি অনুব্রতের দেহরক্ষী সায়গল হোসেন কে দিল্লি নিয়ে যাওয়ার জন্য সম্প্রতি   কলকাতা হাইকোর্টের দারস্থ হয়েছিল।কলকাতা হাইকোর্টে ইডির আবেদন খারিজ হওয়ায় ইডি দিল্লির এক নিম্ন আদালত থেকে সায়গল কে দিল্লি নিয়ে যাওয়ার ছাড়পত্র পেয়েছিল।তবে দিল্লি হাইকোর্টে নিম্ন আদালতের নির্দেশ কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে আপিল পিটিশন দাখিল করে সায়গলের আইনজীবী। আজ অর্থাৎ বুধবার দিল্লি হাইকোর্টে শুনানি রয়েছে ইডির মামলার।  এতেই অনেকটাই চাপে অনুব্রত মন্ডল ।

তার উপর আরও চাপ বাড়িয়েছে সিবিআই। এবার তারা ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় অনুব্রত মন্ডল কে নিজেদের হেফাজতে চাইছে। সম্প্রতি   দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টে সিবিআইয়ের দাখিল পিটিশনের শুনানি ছিল,তাতে এক সপ্তাহের সময়সীমা বেঁধে দিয়েছিল আদালত পরবর্তী শুনানির জন্য । গত বিধানসভার ভোট পরবর্তী হিংসায় ইলামবাজারের খুনের ঘটনায় সুপ্রিম কোর্টের  দ্বারস্থ হয়েছে  কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই । প্রসঙ্গত, এই মামলায় কলকাতা হাইকোর্ট আইনী স্বস্তি দিয়েছিল তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলকে।বীরভূমের দাপুটে  নেতার বিরুদ্ধে কোনও কঠোর পদক্ষেপ করা যাবে না বলে নির্দেশ রয়েছে  কলকাতা  হাইকোর্টের। কলকাতা হাইকোর্টের সেই নির্দেশ কে  চ্যালেঞ্জ জানিয়ে এবার সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ  হয়েছে  সিবিআই । সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হেমন্ত গুপ্তা ও বিচারপতি সুধাংশু ধূলিয়ার ডিভিশন  বেঞ্চে শুনানি হয় এদিন। তাতে সিবিআইয়ের আবেদনের পূর্নাঙ্গ শুনানি না হওয়া অবধি বহাল থাকবে কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ এর আইনী রক্ষাকবচ দেওয়ার নির্দেশ টি।

ভোট পরবর্তী হিংসার মামলায় অনুব্রত মণ্ডলকে যে আইনি রক্ষাকবচ দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট, তা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে গেছে সিবিআই।উল্লেখ্য , ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচন পরবর্তী সময়ে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় রাজনৈতিক  হিংসার অভিযোগ উঠেছিল। মূলত অভিযোগ ছিল রাজ্যের শাসক দলের দিকে। গত বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের পরের দিন বীরভূমের ইলামবাজারে বিজেপি কর্মী গৌরব সরকারকে পিটিয়ে খুন করার অভিযোগ উঠেছিল।। ওই ঘটনায় ২৪ জনের নামে মামলা করা হয়। পরবর্তী সময়ে তদন্তভার হাতে নিয়ে সিবিআই দুই তৃণমূল বিধায়ককে জিজ্ঞাসাবাদ করে থাকে । তলব করা হয়েছিল অনুব্রত মণ্ডলকেও। তবে ওই ঘটনায় বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতিকে আইনি রক্ষাকবচ দিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্ট।

এবার হাইকোর্টের সেই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই। সিবিআই ইতিমধ্যেই গরু পাচার মামলায় অনুব্রত কে  গ্রেফতার করেছে। এবার সেই সিবিআই-ই ভোট পরবর্তী হিংসা মামলাতেও কেষ্টকে হেফাজতে চাইছে তদন্তের গতি আনতে । অনুব্রত মণ্ডলকে হেফাজতে পেতে  সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে সিবিআই। গত সপ্তাহে  সিবিআইয়ের সেই আবেদনের শুনানি ছিল। এর আগে অনুব্রত মণ্ডলকে ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় আইনি রক্ষাকবচ দেয় কলকাতা হাইকোর্ট। সিবিআই জিজ্ঞাসাবাদ করলেও কেষ্ট মণ্ডলকে গ্রেফতারের মতো কঠিন পদক্ষেপ করতে পারবে না বলে অন্তর্বর্তী নির্দেশ জারি করে  থাকে কলকাতা হাইকোর্ট ।

সেই কারণেই রজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় একাধিক সাক্ষীর বয়ানে অনুব্রত মণ্ডলের নাম উঠলেও তাঁকে হেফাজতে নিয়ে দীর্ঘ জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারছে না সিবিআই। অনুব্রতকে দেওয়া হাইকোর্টের আইনি রক্ষাকবচকে চ্যালেঞ্জ করে এবার সুপ্রিম কোর্টে আবেদন সিবিআইয়ের। কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থার দায়ের করা স্পেশাল লিভ পিটিশন নিয়ে গত সপ্তাহে  শুনানি চলেছিল সুপ্রিম কোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে।এই মামলায় পরবর্তী শুনানির জন্য আদালতের কাছে এক দিনের সময়সীমা সিবিআই চাইলে,আদালত  ১৮ অক্টোবর অর্থাৎ এদিন  শুনানির দিন ধার্য করেছিল।

ওয়াকিবহাল মহল মনে করছে – সায়গল কে দিল্লি নিয়ে যেতে পারলে পরবর্তীতে অনুব্রত কে একই মামলায় দিল্লি নিয়ে যাওয়ার চেস্টা চালাবে ইডি।সবটাই নির্ভর করছে আদালতের উপর। গরু পাচার মামলায় যেভাবে সিবিআই – ইডির সাঁড়াশি চাপে রয়েছেন বীরভূমের দাপুটে নেতা অনুব্রত মন্ডল। তাতে ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় সুপ্রিম কোর্টের সাময়িক আইনী রক্ষাকবচ বহাল রাখাটা বেশ কিছুটা ‘অক্সিজেন’ দিল কেস্ট কে বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। আজ দিল্লি হাইকোর্টে অনুব্রতের দেহরক্ষী সায়গল হোসেনের দিল্লি হাইকোর্টে ইডির জেরা করার পিটিশনের শুনানি রয়েছে।


Related posts

ফল ঘোষণার আগেই, তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষ পূর্ব বর্ধমানে

E Zero Point

দুয়ারে সরকারে উপভোক্তাদের ফর্ম ফিলাপে বিধায়ক

E Zero Point

১০০ দিনের কাজের দাবিতে অবরোধ পূর্বস্থলীতে

E Zero Point

মতামত দিন