30/09/2022 : 8:20 AM
BREAKING NEWS
অন্যান্য

স্বপ্নাদেশে লকডাউনে মঙ্গলকোটের জালপাড়ায় প্রতিষ্ঠিত হলো “নব কানন”

পরাগজ্যোতি ঘোষ; মঙ্গলকোট : অক্ষয় তৃতীয়ার দিন স্বর্গীয়া দিদি শ্বাশুড়ি কাননবালার স্বপ্নাদেশ – “তোর বাড়ির সামনে পাকা রাস্তার ধারে এক কোণে বুনো নিম গাছ হয়ে আমি জন্ম নিয়েছি – ওটাকে তুই প্রতিষ্ঠা কর।” পত্নী নবনীতার এহেন স্বপ্নাদেশ শুনেই ঘোষ বাবু উদ্যোগ নিলেন বুনো নিম গাছটিকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য। সঙ্গী হলেন ছোটো বেলার বন্ধু স্থানীয় গ্যারাজ মালিক দীপক পাল এবং এ বাড়ির পাশেই পোল্ট্রি মাংস বিক্রেতা কৌস্তভ মণ্ডল। দীপক বাবু জায়গাটাকে দারুণ ভাবে পরিষ্কার করলেন। অবাক করার বিষয় গাছটি সত্যিই বুনো গাছ গাছালির মধ্যেই বেড়ে উঠেছে এবং তাকে বেষ্টনী করে রয়েছে ঘোষ বাবুদেরই ট্রাক্টরের খুলে রাখা দুটো ক্যাসুয়াল চাকা। ফলে গাছটি রক্ষা পাচ্ছে গবাদিপশুদের হাত থেকে। উল্লেখ্য যে যায়গায় বুনো নিম গাছটি বড় হয়ে উঠেছে ওখানেই ছিল ঘোষবাবুর দাদামশাই মানিকেশ্বর মণ্ডলের প্রতিষ্ঠা করা এক লাল কৃষ্ণচূড়ার গাছ। এছাড়াও তিনি একটি অশ্বত্থ গাছ প্রতিষ্ঠা করে বালক ভোজন করিয়ে ছিলেন তাঁর জীব্ৎকালে। ঘোষবাবুর বন্ধু দীপক বাবু নিজ উদ্যোগেই স্থানীয় ব্রাহ্মণ কাঞ্চন গাঙ্গুলীকে দিয়ে সেখানে পূজো দিলেন। দীপক বাবু বলেন তাঁরা প্রত্যেকেই খুশী। বৃক্ষ রোপন একটি মহৎ কাজ। আজ প্রকৃতি বৃক্ষহীন হয়েছে বলেই এত মহামারী। তাই তার বন্ধু ঘোষ বাবু তখন তাঁকে বলেন তিনি খুশী হয়েই এই কাজে নেমে পড়েন। কৌস্তভ পোল্ট্রি মুরগি বিক্রেতা হলেও আসলে সে কিন্তু সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ে স্থানীয় শেফালী মেমোরিয়ালে। অবসর সময়ে বাবাকে সাহায্য করে। সে বলে সত্যিই তো এভাবে গাছ বসালে সমাজে আদর্শ প্রচার বাড়বে বৃক্ষ রোপণের। তাই নবনীতা বৌদির স্বপ্নাদেশ সমাজের পক্ষে শুভ সংকেত। ঘোষবাবু বৃক্ষটির নাম রাখলেন নব কানন। তিনি বলেন বৌ ‘নবনীতার’ – নব এবং দিদিমা ‘কাননবালার’ – কানন এই নিয়ে নাম রাখা হলো – নব কানন।

Related posts

ভারতীয় রেলের ১৫ জোড়া (৩০টি) বিশেষ ট্রেনের সময়সূচীর ঘোষণা

E Zero Point

দধীচি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার পাশে ফেডারেল ব্যাঙ্ক

E Zero Point

আইআইএ-র বিজ্ঞানীরা নতুন লিথিয়ামে ভরপুর লাল নক্ষত্রের সঙ্গে নক্ষত্রমন্ডলে লিথিয়ামের প্রাচুর্য্যের যোগ খুঁজে পেলেন

E Zero Point

মতামত দিন