09/07/2020 : 11:55 PM
BREAKING NEWS
Top News আমার বাংলা কলকাতা

বাতিল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়র পরীক্ষাঃ এক নজরে উচ্চশিক্ষা দফতরের সুপারিশ

বিশেষ প্রতিবেদনঃ গত শনিবার রাজ্যের উচ্চশিক্ষা দফতরের পক্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে সুপারিশ পাঠানো হয়েছে যে, করোনা পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় গুলিতে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরের ফাইনাল সেমিস্টারের পরীক্ষা বাতিল করা হোক।  ফাইনাল সেমিস্টারের পরীক্ষা বাতিল করা হলেও উচ্চ শিক্ষা দফতরের তরফে জানানো হয়েছে , পূর্ববর্তী পরীক্ষার সর্বোচ্চ নম্বরের ৮০ শতাংশ, বাকি ২০ শতাংশ অ্যাসাইনমেন্ট – এর ভিত্তিতেই হবে মূল্যায়নের ভিত্তিতে ৩১ জুলাইয়ের মধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে ফাইনাল সেমিস্টারের ফলাফল প্রকাশ করতে হবে ।

এক নজরেঃ


  • রাজ্যের সব বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে মূল্যায়ন ব্যবস্থা একই রকম থাকতে হবে সব বিভাগের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য ।
  • আগের পাঁচটি সেমিস্টারের থেকে প্রাপ্ত নম্বর থেকে যে সেমিস্টারে সব থেকে বেশি নম্বর পেয়েছে সেই নম্বর ফাইনাল সেমিস্টার পরীক্ষায় যোগ করে ছাত্র-ছাত্রীদের রেজাল্ট দেওয়া হবে ।
  • সেক্ষেত্রে এই নম্বরের ওয়েটেজ বা গুরুত্ব থাকবে ৮০%, বাকি ২০ শতাংশ ফাইনাল সেমিস্টারের ইন্টার্নাল অ্যাসেসমেন্টের ওপর ।
  • রাজ্যে যে সমস্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রফেশনাল কোর্স অর্থাৎ ইঞ্জিনিয়ারিং , আইন , ম্যানেজমেন্ট ,ফার্মাসি , শিক্ষক প্রশিক্ষণ- সহ অন্যান্য প্রফেশনাল কোর্সের সঙ্গে যুক্ত ছাত্র-ছাত্রীদের পঠন-পাঠন করায় , তাদেরকেও একই নিয়ম মানতে হবে।
  • যদি কোনও ছাত্র-ছাত্রী এই মূল্যায়ন পদ্ধতির বদলে লিখিত পরীক্ষায় বসতে চায় তাহলে বিশ্ববিদ্যালয়কে সেই ছাত্র বা ছাত্রীকে পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ করে দিতে হবে ।এই পরীক্ষা বর্তমান পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে নিতে পারবে বিশ্ববিদ্যালয় এবং  পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ পরীক্ষা নেওয়ার এক মাসের মধ্যেই প্রকাশ করতে হবে।
  • ছাত্র বা ছাত্রী লিখিত পরীক্ষায় যে নম্বর পাবে সেই নম্বরকেই চূড়ান্ত নম্বর হিসেবে ধার্য করা হবে । বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে ছাত্র-ছাত্রীদের স্পেশ্যাল এই পরীক্ষা নেওয়ার জন্য আগে থেকে মুচলেখা নিতে হবে ।
  • ফাইনাল সেমিস্টার ছাড়া অন্যান্য যে সেমিস্টারগুলি রয়েছে , সব ছাত্র-ছাত্রীদের পরবর্তী সেমিস্টারে পাশ করিয়ে দিতে হবে ।
  • করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পরবর্তী শিক্ষাবর্ষ শুরুর বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে রাজ্য সরকার । সেক্ষেত্রে রাজ্যের সব বিশ্ববিদ্যালয়ে একই সময়ে শিক্ষাবর্ষ শুরু হবে ।
  • লকডাউনের জন্য বর্তমান শিক্ষাবর্ষের পঠনপাঠনের যে ক্ষতি হয়েছে , সেই দিনগুলিতে পড়ুয়াদের  উপস্থিতি গণ্য করতে হবে ।
  • অনলাইনে ক্লাসের জন্য কোনো রকম অতিরিক্ত ফি নেওয়া যাবে না ।
  • প্রত্যেকটি বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজকে একটি করে  অভিযোগ সেল খুলতে হবে- ছাত্রছাত্রীরা পঠন-পাঠন ও পরীক্ষা সংক্রান্ত কোন অভিযোগ থাকলে তা জানাতে পারবে।4

উচ্চ শিক্ষা দফতর সূত্রে জানা যায় যে, গত ১৩ জুন রাজ্যের সব বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য , রেজিস্ট্রার সহ-উপাচার্যদের নিয়ে বৈঠক করেছিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় । বৈঠকেই ফাইনাল সেমিস্টার-সহ শিক্ষাবর্ষ শুরু করা যাবে , তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয় । তারপর গত শনিবার রাজ্য সরকারের তরফে বিশ্ববিদ্যালয় গুলিকে এই প্রস্তাব বা সুপারিশ পাঠানো হয়েছে । আগামী সপ্তাহ থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়গুলি এই প্রস্তাব বা সুপারিশ কীভাবে কার্যকর করবে , তা নিয়ে প্রস্তুতি শুরু করবে বলে জানা গেছে। (সংবাদ সংস্থা)

Related posts

গাছ প্রেমী মানুষের ভিড় বর্ধমানের কার্জনগেটেঃ কে.বি.এস. কিং-এর ঘরে ঘরে চারা গাছ বিলি

E Zero Point

এসটিকেকে সড়ক নিয়ে পর্যালোচনা সভা পূর্বস্থলীতে

E Zero Point

পুকুর খনন করতে গিয়ে প্রাচীন বৌদ্ধ মূর্তি উদ্ধার হুগলীর পোলবাতে

E Zero Point

মতামত দিন