29/02/2024 : 9:27 PM
আমার বাংলাগুসকরাদক্ষিণ বঙ্গপূর্ব বর্ধমান

প্রাকৃতিক দুর্যোগকে উপেক্ষা করে গুসকরায় রক্তদাতাদের ভিড়

জিরো পয়েন্ট নিউজ – জ্যোতি প্রকাশ মুখার্জ্জী, গুসকরা, ১৬ নভেম্বর ২০২১:


ভয় বা কুসংস্কার কাটিয়ে রক্তদান বিষয়ে ধীরে ধীরে মানুষের মধ্যে যে সচেতনতা বাড়ছে তার প্রমাণ পাওয়া গেল প্রচন্ড প্রাকৃতিক দুর্যোগ কে উপেক্ষা করে রক্তদান শিবিরের সামনে আগ্রহী রক্তদাতাদের ভিড় দেখে।

গত ১৪ ই নভেম্বর পূর্ব বর্ধমানের শিরিষতলা সংলগ্ন গুসকরা বিষাণ অ্যাথ্লেটিক ক্লাব এর উদ্যোগে ক্লাব প্রাঙ্গনে একটি রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা হয়। নিম্নচাপ জনিত কারণে আগের দিন বিকেল থেকেই শুরু হয় একটানা বৃষ্টি। রবিবারও তাতে ছেদ পড়েনি। কখনও জোরে, কখনও বা ঝিরঝির করে। তার উপর শীতের আমেজ। পরিস্থিতি দেখে উদ্যোক্তারা প্রচন্ড চিন্তায় পড়ে যায়। কিন্তু নির্দিষ্ট সময়ের আগে শিবিরের সামনে আগ্রহী রক্তদাতাদের ভিড় দেখে উদ্যোক্তাদের চিন্তা দূর হয়ে যায়। শেষপর্যন্ত বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজের ব্লাড ব্যাংক শাখার ভ্রাম্যমান রক্ত সংগ্রহকারী বাসের মাধ্যমে শিবির থেকে ৫০ ইউনিট রক্ত সংগ্রহ করা হয়। এদের মধ্যে ঋতজা গুপ্ত নামে একজন কলেজ ছাত্রীও ছিল। সংগৃহীত রক্ত বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজের ব্লাড ব্যাংক শাখার হাতে তুলে দেওয়া হয়। প্রসঙ্গত এই প্রথম গুসকরা শহরের বুকে ভ্রাম্যমান রক্ত সংগ্রহকারী বাসের মাধ্যমে রক্তদান শিবির অনুষ্ঠিত হয়।

১৪ই নভেম্বর ছিল ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরুর জন্মদিন তথা জাতীয় শিশু দিবস। দিনটিকে স্মরণীয় করে রাখার জন্য উদ্যোক্তারা থ্যালাসেমিয়ায় আক্রান্ত শিশুদের পাশে থাকা এবং থ্যালাসেমিয়া মুক্ত সমাজ গড়তে জন সচেতনতা গড়ে তোলার অঙ্গীকার করেন ।

হাসতে হাসতে কলেজ ছাত্রী ঋতজা বললেন- অস্বীকার করবনা, প্রথমে একটু ভয় লাগছিল ঠিকই কিন্তু ছুঁচ ফোটানোর পর আর কোনো ভয়ই লাগছিল না। সুযোগ পেলে আবার রক্তদান করব। তিনি আশা করেন পরবর্তীকালে আরও বেশি সংখ্যায় কলেজ ছাত্রীরা রক্তদান করতে এগিয়ে আসবে। উদ্যোক্তাদের কাছে জানা যাচ্ছে ইতিমধ্যে বেশ কিছু কলেজ ছাত্রী রক্তদান করার বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

প্রাকৃতিক দুর্যোগ উপেক্ষা করে যেভাবে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজের ভ্রাম্যমান রক্ত সংগ্রহকারী বাসের টিম ম্যানেজমেন্ট সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন এবং ৫০ জন রক্তদাতা রক্তদান করতে এগিয়ে এসেছে তারজন্য তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে ক্লাব সম্পাদক সৌগত গুপ্ত বললেন – এদের অবদান কোনো দিনই ভুলতে পারবনা। আশাকরি আগামীদিনেও এদের সহযোগিতা পাব। একইসঙ্গে “টিম বিষাণ” এর উপস্থিত সমস্ত সদস্যদের তিনি আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।


Related posts

এসবিএসটিসি-র নতুন চেয়ারম্যানকে সংবর্ধনা

E Zero Point

ভাতারে বলগোনাই বামফ্রন্টের কৃষকসভার বিক্ষোভ মিছিল

E Zero Point

বড়পলাশন গ্রামের ৩৫০ পরিযায়ী শ্রমিকের বিক্ষোভ মেমারিতে

E Zero Point

মতামত দিন