07/12/2022 : 8:20 AM
BREAKING NEWS
আমার বাংলাদক্ষিণ বঙ্গপূর্ব বর্ধমানমেমারি

হাইকোর্টের নির্দেশে নিয়োগ বাতিল মেমারির ইতিহাস শিক্ষকেরঃ তালিকায় শেষের দিকে নাম থাকার পরও ২ বছর শিক্ষকতা জামালপুরের স্কুলে

জিরো পয়েন্ট নিউজ ডেস্ক, মেমারি, ১৫ অক্টোবর ২০২২:


রাজ্যের মন্ত্রী পরেশ অধিকারীর কন্যা অঙ্কিতা অধিকারীর পর এবার আরও ২০ জনের চাকরি বাতিল করা হল। কলকাতা হাইকোর্টে এসএসসির তরফে যে হলফনামা জমা করা হয়েছিল, তাতে ১৮৩ জনের ব্যতিক্রমী নিয়োগের কথা জানিয়েছে স্কুল সার্ভিস কমিশন। তার মধ্যে ২০ জনকে ইতিমধ্যেই বরখাস্ত করা হয়েছে বলে জানা যায়।

তালিকা অনুসারে জানা যায় মেধা তালিকা অনুযায়ী ‘অযোগ্য’ শিক্ষকের কেউ অঙ্কের, ইতিহাসের তো কেউ জীবনবিজ্ঞানের, ভৌতবিজ্ঞানের। ২০ জন শিক্ষকের মধ্যে বেশিরভাগই মুর্শিদাবাদের। ইমাম মোমিন, ইংরেজি শিক্ষক, রামচন্দ্রপুর হাই স্কুল, দক্ষিণ দিনাজপুর, মহম্মদ গোলাম রব্বানি, ইংরেজি শিক্ষক, বলদিয়া বাশা হাই স্কুল, উত্তর দিনাজপুর, জুঁই দাস, বাংলা, গুরজপুর শিবগঞ্জ বিশ্বলক্ষ্মী হাই স্কুল, হাওড়া, মহম্মদ আজাদ আলি মির্জা, বাংলার শিক্ষক, খাবরা এইচ এন আগ্রিল হাই স্কুল, মালদা, ইলোরা হক, বাংলা, শেখ ইনসান আলি, ইতিহাস, বাণী নিকেতন আরএম বিদ্যালয়, পূর্ব বর্ধমান, মঞ্জুরুল সরকার, অঙ্ক, পঞ্চগ্রাম আইএসএ হাই স্কুল, মুর্শিদাবাদ, মহম্মদ আমির হোসেন, অঙ্ক, নাজিরপুর এসেরপাড়া হাই স্কুল, মুর্শিদাবাদ, মহম্মদ শরিয়াতুল্লা, অঙ্ক, ধর্মদঙ্গ হাই স্কুল, মুর্শিদাবাদ, রমজান আলি, অঙ্ক, লস্করপুর হাই স্কুল, মুর্শিদাবাদ, মহম্মদ জসিমউদ্দিন শেখ, অঙ্ক, কাজিপাড়া হরিদাস বিদ্যাভবন, মুর্শিদাবাদ, মেহেরুল হক, অঙ্ক, দিঘরি হাই স্কুল, মুর্শিদাবাদ, নীলমণি বর্মণ, অঙ্ক, সাহাপুর সাঁওতাল হাই স্কুল, মুর্শিদাবাদ, নাজিরা খাতুন, ভূগোল, কামারতোড় হাই স্কুল, উত্তর দিনাজপুর, গুরুপদ ঘড়াই, জীবন বিজ্ঞান, কুতুবপুর নব আদর্শ হাই স্কুল, মুর্শিদাবাদ, অভিজিৎ রায়, ভৌত বিজ্ঞান, দিব্যেন্দু সমাজদার, ভৌত বিজ্ঞান, হোসেনপুর হাই স্কুল, মুর্শিদাবাদ, অরুণ কুমার সিনহা, ভৌত বিজ্ঞান, মহম্মদ তাজুউদ্দিন আহমেদ সাফিল ইমাম, ভৌতবিজ্ঞান, সিদ্দিক গাজি, অঙ্ক, সালুয়াডাঙা হাই স্কুল, মুর্শিদাবাদ।

এর মধ্যে পূর্ব বর্ধমানের মেমারির বাসিন্দা এক শিক্ষকের নাম দেখা গেছে তালিকাতে। জনৈক শিক্ষকের নাম ইনসান আলির। বাড়ি মেমারি পৌরসভার ১০ নং ওয়ার্ডের পীড়িতপাড়ায়। তিনি জামালপুরের বাণী নিকেতন আরএম বিদ্যালয়ের ইতিহাসের শিক্ষক। সংবাদসূত্রে জানা যায়  এই ইনসান আলির নাম অতীতে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা চলাকালীনও উঠে এসেছিল। শেখ ইনসান আলি নামে এই ব্যক্তির র‍্যাঙ্ক নীচের দিকে ছিল, অথচ তিনি চাকরি পান বলেই অভিযোগ তুলেছিলেন মামলাকারীরা। এই ইনসান আলি আবার এককালে আন্দোলনের সঙ্গেও যুক্ত ছিলেন। এক আন্দোলনরত চাকরিপ্রার্থী জানান, ২০১৯ সালে যে আন্দোলন হয়েছিল, তাতে সভাপতি ছিল ইনসান আলি। কিন্তু ২০২০ সালে সে চাকরি পেয়ে গিয়েছিল। ওই স্কুলে ইতিহাস পড়াতেন এই শিক্ষক। তবে বিষয়টি যেদিন থেকেে হাইকোর্টের নজরে আসে সেদিন থেকে উনি স্কুলে আসা বন্ধ করে দিয়েছেন বলে বিশেষসূত্রে জানা যাচ্ছে।

জিরো পয়েন্ট এর প্রতিনিধি বারবার তার বাড়িতে গেলও ইনসান আলির দেখা মেলেনি। তার বাড়ীর দরজা ভিতর থেকে বন্ধ। ডাকাডাকি করে কোন সাড়া পাওয়া যায়নি। প্রতিবেশীরাও এব্যপারে কিছু বলতে নারাজ। তার দাদা সবজী ব্যবসায়ী আখতার আলি জানালেন, এব্যপারে তিনি কিছু জানেন না, আইন আইনের কাজ করেছে, এর বেশি আর কিছু জানি না।’

অন্যদিকে শুক্রবার মেমারি নতুন বাসষ্ট্যান্ডে সিটুর জেলা সম্মেলনের সমাবেশে বামেদের রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী সুশান্ত ঘোষ সাংবাদিকদের জানান, যে শিক্ষক অন্যায় করেছে তার ফল ভোগ করতে হবেই, কেউ রক্ষা পাবে না।


Related posts

পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রায় ১০০০ বৃক্ষরোপণ

E Zero Point

মেমারির স্বপ্নসন্ধানী শিক্ষা ও সংস্কৃতি কেন্দ্রর অনলাইন ও অফলাইন শিক্ষক দিবস

E Zero Point

বাগদেবীর আরাধনায় মেতেছে গোটা রাজ্য

E Zero Point

মতামত দিন