28/11/2022 : 5:57 PM
BREAKING NEWS
আমার বাংলা

একাধিক শহর নেতৃত্ব অনুপস্থিত বিজয়া সম্মিলনীতেঃ তির্যক মন্তব্য শহর তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতির

জিরো পয়েন্ট নিউজ– সুব্রত চক্রবর্তী ও এম. কে. হিমু, মেমারি, ১৯ অক্টোবর ২০২২:


মঙ্গলবার  মেমারি কৃষ্টি প্রেক্ষাগৃহে অনুষ্ঠিত হল শহর তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বিজয়া সম্মীলন ও দলীয় প্রবীন নেতৃত্বদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অভিনেতা তথা বিধায়ক সোহম চক্রবর্তী, মেমারির বিধায়ক মধুসূদন ভট্টাচার্য, পূর্ব বর্ধমান জেলা সভাপতি রবীন্দ্রনাথ চ্যাটার্জী, জেলা আই.এন.টি.টি.ইউ.সি সভাপতি  সৈয়দ মহঃ সেলিম, জেলা বঙ্গজননীর সভানেত্রী চন্দনা মাঝি। স্থানীয় শহর নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শহর যুব সভাপতি সৌরভ সাঁতরা, শহর তৃণমূল কংগ্রেসের সহ সভাপতি আশিষ ঘোষ দোস্তিদার, শহর আই.এন.টি.টি.ইউ.সি সভাপতি সেখ আসরফ আলি, মেমারি ১ ব্লক যুব সভাপতি মহঃ শাহজাহান।

তবে মেমারি পৌরসভার ১৬টি ওয়ার্ডের ১৫ জন তৃণমূল কাউন্সিলরের মধ্যে ২ জন কাউন্সিলর ১৪ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রণজিত বাগ ও ১৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদ্ম ক্ষেত্রপাল থাকলে ও গড় হাজির বাকি ১১ জন তৃণমূল কাউন্সিলর। এমন কি দেখা মিললো না মেমারি পৌরসভার পৌর প্রধান স্বপন বিষয়ী ও উপ পৌরপ্রাধান সুপ্রিয় সামন্তর।

শহর তৃণমূল কংগ্রেস এর উদ্যোগে বিজয়া সম্মিলনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হলেও মেমারি পৌরসভার পৌর প্রধান এর অনুপস্থিত নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক জল্পনা। এ বিষয়ে মেমারি শহর তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি স্বপন ঘোষাল সাংবাদিকদের বলেন, “২০২১ সালে যারা বিজেপি জিতবে বলে উল্লাস করেছিল, তারা আজকে অনুপস্থিত আছে। ২০২১ সালে যারা সিপিএম এবং বিজেপি সাথে টক্কর লাগিয়ে লড়াই করেছিল তারা সবাই আছে।”

যদিও কার্ডে চেয়ারম্যান-ভাইস চেয়ারম্যান এর নাম নেই । এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন “এটা সাংগঠনিক ব্যাপার, এখানে চেয়ারম্যান-ভাইস চেয়ারম্যান নাম থাকার কোনো ব্যাপার নেই। পুরসভার কোন অনুষ্ঠান হলে অবশ্যই চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যানের নাম থাকত।রাজ্য থেকে নির্দেশ ছিল বিধায়ককে নিয়ে বিজয়া সম্মেলন করতে হবে। তাই বিধায়ক কে আন্ত্রন জানানো হয়েছে।”

শহর সভাপতি স্বপন ঘোষাল আরও জানান, শহর তৃণমূলের এই সম্মেলনকে আটকাবার জন্য আজকে যারা আসেনি তারা রাস্তায় রাস্তায় ব্যারিকেড করেছে। সিপিএমের আমলে যেমন তৃণমূল কংগ্রেস এবং কংগ্রেস কে ভোট দিতে যেমন বাধা দেওয়া হতো, আটকে দেয়া হতো, ঠিক তেমনি ভাবে একটি সম্মেলনে না আসার জন্য আমাদের কর্মীদেরকে ভয় দেখানো হয়েছে। যারা অনুপস্থিত তারাই ভয় দেখিয়েছে। তবে যারা আটকাচ্ছে তারা তৃণমূল কিনা জানিনা। যারা বিজেপির সাথে আঁতাত করে ২০২১ সালে কে বিধায়ককে হারানোর চেষ্টা করেছিলেন তারাই আজকে ব্যারিকেড করেছে।

যদি এই বিষয়ে মেমরি পৌরসভার পৌর প্রধান ও উপপৌরপ্রধানের সাথে টেলিফোনে যোগাযোগ করা হলে, কোন কোন প্রতিক্রিয়া দিতে চাননি। তবে জেলা সভাপতি তথা কাটোয়ার বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চ্যাটার্জী বলেন, আমি একটু দেরিতে পৌঁছেছি এখানে, অনেকেই অনুপস্থিত বিষয়টি দেখতে পাচ্ছি তবে কারণ কি এখনো জানা নেই বিষয়টি সম্পর্কে খোঁজ খবর নেওয়া হবে।”

তবে বিজয়া সম্মিলনীর মঞ্চে শহর মেমারির একাধিক নেতৃত্ব অনুপস্থিতির কারণ হিসাবে শহর তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি স্বপন ঘোষালের যে ইঙ্গিতবাহক তির্যক মন্তব্যের পর মেমারি শহরের তৃণমূল কর্মীদের ফেসবুক প্রোফাইলে সমালোচনার যে ঝড় উঠেছে তাতে আগামীদিনে নতুন রাজনৈতিক সমীকরণ তৈরি করে কিনা শহর মেমারির বুকে সেটি এখন দেখার।


Related posts

প্রতিশ্রুতি সত্বেও রাস্তা হয়নি, আমাদপুর লন্ডন হয়েছেঃ তৃণমূলের সভায় ভাঙচুর মেমারিতে

E Zero Point

“তপসিলির সংলাপ” অভিযান মঙ্গলকোটে

E Zero Point

মঙ্গলকোটের লাকুরিয়া ইয়ং অ্যকশন ক্লাবের উদ্যোগে এক দিনের ফুটবল প্রতিযোগিতা

E Zero Point

মতামত দিন