05/10/2022 : 7:54 PM
BREAKING NEWS
অন্যান্য

লকডাউনে মানুষের পাশে উস্থি প্রাথমিক শিক্ষক সংগঠনের শিক্ষকরা : টিম বর্ধমান -“মানুষের পাশে মানুষের সাথে শিক্ষক সমাজ”

প্রেরণা দে, বর্ধমানঃ মা-বাবার পর সমাজে মানুষ তৈরির কারিগর বলতে যদি কেউ থাকেন তা হল শিক্ষক। একজন শিক্ষকই পারেন সমাজের বুকে এক শিক্ষিত, সচেতন নাগরিক উপহার দিতে। তাই পৃথিবীতে শিক্ষকের অবদান সর্বাগ্রে। কিন্তু সমাজ-রাজনীতির বেড়াজালে এই শিক্ষক সমাজ বঞ্চনার শিকার হয়ে থাকে। শিক্ষকের মনে দানা বাঁধে ক্ষোভের। সেরকমই পুঞ্জিভূত ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশের নাম উস্থি। কিছু মাস আগে এই উস্থি ইউনাইটেড প্রাইমারী টিচার ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের আন্দোলন খবরের শিরোনামে জায়গা করে নিয়েছিল। মানুষের ধারনা উস্থি মানেই আন্দোলন। আসলে মানুষ ভুলে যায় যে, তার জীবনের শিক্ষাগত ভিত্তি এই প্রাথমিক শিক্ষকেরাই রেখেছিলেন।

করোনার পরিস্থিতির জন্য লকডাউনের শুরুতেই এই শিক্ষক সমাজকে নিয়ে অনেক কথায় ওঠে, তবে সেসবে কান দেওয়া তো শিক্ষকদের কাজ নয়, তাদরে কাজ মানুষ তৈরি করা। আর সেই লক্ষ্যেই সমগ্র রাজ্যজুড়ে উস্থি-র বিভিন্ন শাখা সংগঠন মাঠে নেমে পড়েছেন করোনা যোদ্ধা হিসাবে। জেলার বিভিন্ন প্রান্তে স্বাস্থ্য কর্মীদের সাহায্য, অসহায় দরিদ্রমানুষের জন্য ত্রাণবিলি অথবা মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে অর্থ সাহায্য।

গত ১১ এপ্রিল উস্থির সভাপতি সন্দীপ ঘোষ ও কোষাধ‍্যক্ষ নাফিসা মেহমুদ নিজ হস্তে সংগঠনের নিজস্ব তহবিল থেকে  মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ১ লক্ষ টাকা অনুদান করেছেন। সম্পাদিকা পৃথা বিশ্বাস জানান যে, রাজ্যজুড়ে উস্থির শিক্ষকরা নিজস্ব উদ্যোগে অসহায় মানুষের পাশ দাঁড়াচ্ছেন ও করোনা বিষয়ে সচেতন করছেন।

সভাপতি সন্দীপ ঘোষ, সম্পাদিকা পৃথা বিশ্বাস ও কোষাধ‍্যক্ষ নাফিসা মেহমুদ

উস্থি টিম বর্ধমানের উদ্যোগে সদর সাউথ সাবডিভিশনের পক্ষ থেকে মেমারি চক্রের গন্তারে 20 টি দুস্থ পরিবারকে  সাধ্যমত ত্রাণ সামগ্রী দেওয়া হয়েছে। দাঁইহাট, ভাতার, শ্রীরামপুর, সমুদ্রগড়, বৈদ্যিপুর, পূর্বস্থলী, মন্তেশ্বর, জামালপুর, সাতগাছিয়া, দেবীপুর, আমাদপুর, মশাগ্রাম, কলানবগ্রাম, বর্ধমান শহরে খাদ্য সামগ্রী বিলি করা হচ্ছে।

সেরকমই গত ২৩ এপ্রিল উস্থির কালনা মহকুমা শাখার পক্ষ থেকে করোনা যুদ্ধে সামনের সারির সৈনিক কালনা সাবডিভিসন হসপিটালের সকল স্বাস্থ্যকর্মীদের ফুল ও কলম সহ সম্মাননা ও শ্রদ্ধার্ঘ্য জানানো হয়। এছাড়া পাশে থাকার বার্তা স্বরূপ ঐ হসপিটালে কোভিড ১৯ মোকাবিলায় চিকিৎসা সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় সরঞ্জামের জন্য পঁচিশ হাজার টাকার আর্থিক অনুদানের চেক হসপিটালের সুপারের হাতে তুলে দেওয়া হয়। শুধু হাসপাতালেই নয় করোনা বিপর্যয়ের সময়ে মানব সেবার মহানতম ব্রতে নিযুক্ত কালনা ভারত সেবাশ্রম সংঘের পরিচালন কমিটির হাতে পাঁচ হাজার টাকার আর্থিক অনুদানের চেক অসহায় মানুষের সেবার জন্য তুলে দেওয়া হয়।

উস্থি সংগঠনের এক শিক্ষক অভিক নন্দী জানালেন যে, সামজিক মাধ্যমে কেউ শিক্ষকদের করোনার সময় বেতন কেটে নিতে বলে বিভিন্ন পোষ্ট দেখা যায়। কিন্তু আমরা শুধু সামাজিক মাধ্যমে নয়, বরং নিজ নিজ এলাকায় সমাজ কে মাধ্যম করেছি। আমাদের ট্যাগ লাইন-” মানুষের পাশে মানুষের সাথে শিক্ষক সমাজ”।

শুধু মাত্র পূর্ব বর্ধমানেই উস্থির কর্মকান্ড সীমাবদ্ধ নেই, উত্তর বঙ্গ, পশ্চিম বর্ধমান, পুরুলিয়া, বীরভূম, বাঁকুড়া, হুগলী জেলাতেও তাদের কর্মকান্ড এই লকডাউনে সামাজিক বিধি মেনে সম্পন্ন করে চলেছে অজস্র শিক্ষকেরা।

Related posts

‘আমরা লড়াই করব, করোনাকে হজম করব’-করোনা সচেতনায় কলকাতার বাজারে নতুন মিষ্টি

E Zero Point

রাজ‍্যে ফের ঘূর্ণিঝড়ের পূর্বাভাস হাওয়া দফতরের!

E Zero Point

জেলাশাসক উদ্বোধন করলেন বড়ঞায় মুক্তমঞ্চ ও কমিউনিটি ভবন

E Zero Point

মতামত দিন