20/06/2024 : 7:05 PM
অন্যান্য

সামজিক দূরত্ব ভুলে, করোনা ভয় কাটিয়ে মদের দোকানের সামনে লাইন মেমারির চেকপোষ্টে

স্টাফ রিপোর্টার, মেমারিঃ দীর্ঘ একমাসের বেশি উপবাস। বিশেষ পানীয়কে লকডাউনে না করেছিলেন অনেক গৃহবন্দী মানুষই। কিন্তু লকডাউনের তৃতীয় দফায় গত সোমবার থেকে কন্টেনমেন্ট এলাকা ছাড়া নির্দিষ্ট সময়ের জন্য বিশেষ পানীয়- মদের দোকান খোলার অনুমতি দেওয়া হয়। রাজ্যের অন্যান্য জেলাতে রাত থেকেই ভিড় উপচে পড়লেও মেমারি শহরের চিত্রটা একটু আলাদা ছিল। কিন্তু আজ সকালে মেমারি চেকপোষ্ট স্থিত মদের দোকানের সামনে সামাজিক দূরত্ব না মেনেই উপভোক্তার ভিড় দেখে মনে হল তারা করোনাকে জয় করেছেন এবং উৎসব করার জন্য তৈরি।

সাংবাদিকদের নজর পড়তেই দোকানের আধিকারীক সামাজিক দূরত্ব রাখার জন্য গ্রাহকদের বলতে থাকলেও কে শোনে কার কথা। প্রসঙ্গত মদের দাম আগেই ৩০ শতাংশ বাড়লেও, রাজ্য সরকারের নির্দেশে বর্ধিত দামের লিষ্ট দোকানের সামনে রাখতে হবে এবং মাস্ক ছাড়া মদ দেওয়া যাবে না বলে উল্লেখ করতে হবে। কিন্তু মেমারির উক্ত দোকানে সেরকম কোন মূল্যতালিকা দেখা গেল না। ৬ ফুট দূরত্বে দাঁড়াতে হবে এবং ৫ দনের বেশি লাইনে দাঁড়াবেন না বলে যে পোষ্টারটি দেখা গেলেও বাস্তব চিত্রে মানুষর মধ্যে মাস্কের বদলে গামছা, ৬ ফুটের বদলে ১ফুট দূরত্ব না রেখেই মানুষের লম্বা লাইন চোখে পড়ল।

উক্ত স্থানে দাঁড়িয়ে থাকা জনৈক ব্যক্তি দূর থেকে বললেন, লকডাউনের সময় আমরা রুজিরোজগার হীন মানুষের লাইন দেখেছি খাদ্যসামগ্রী নিতে অথবা রেশনের চাল নিতে অথবা ব্যাঙ্কের জনধন অ্যাক্উন্টের ৫০০ টাকা তুলতে, এবার আমরা দেখছি মদের দোকানের সামনে লাইন। এবার হয়ত ধীরে ধীরে সংবাদের পাতা ভরবে অ্যাক্সিডেন্ট, অপরাধ ও অসামাজিক কার্যকলাপে কেননা আমরা করোনাকে আর ভয় পায় না। লকডাউন ভাঙ্গবো, করোনাকে চোখ রাঙিয়ে রাস্তায় ঘুরে বেড়াবো। আর করোনা ধীরে ধীরে তার আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমান্বয়ে বাড়াতে থাকবে।

Related posts

ধারাবাহিক গল্পঃ নীভা থেকে নীভাদেবী হয়ে ওঠার কাহিনী (দ্বিতীয় পর্ব) ~ সুতপা দত্ত

E Zero Point

আজ পবিত্র গুড ফ্রাইডে

E Zero Point

বৈশাখী উৎসব কমিটির মানবিক উদ্যোগ

E Zero Point

মতামত দিন