29/02/2024 : 8:46 PM
অন্যান্য

ছড়া

গণু আর মা


বর্ণালী শেঠ

ছোট্ট সোনা গণপতি, ছোট্ট মা দুর্গা রানী,
পেটুক ছেলের পেট ভরাতে হাজির হলেন মা জননী।
ছোট মা সেজেই রাজি,আস্তে ম‌রতেলোকে, সঙ্গে নিয়ে লক্ষী গণেশ, কার্তিক আর সরস্বতীকে।
ছবিটা এরকম হলে ভালো লাগে মনটা,কাশ ফুলে ভরে গেছে পুরো জগৎটা।
শিশু ছবির ছবির দেখে মনে হয় বাকে‍্য, পিতা ও ঘুমিয়ে আছে না দেখো যদিও চখে‍্য।
মিষ্টি ছবিটা মনে করাতে বাধ্য,
আসছে মা আমাদের কাছে ক দিনের মধ্যে।
মায়ের ইচ্ছায় জনমে সে গণু, খেয়ে আর খাইয়ে মজায় আছে যেন।
চিরদিনের মা আমার খাইয়েই তুষ্টি,
মর্তে মায়ের হাসি নামে ছবিতেই তার পুষ্টি।


মর্তে আসার প্রস্তুতি


 সুতপা দত্ত

কৈলাসে চলছে মর্তে আসার প্রস্তুতি । সবাই তৈরী । পার্বতী মায়ের কি অপূর্ব সাজ । কিন্তু দেরী করছে মায়ের আদুরে গণা , মানে গণেশ বাবাজী । কি কথোপকথন চলছে মায়ে- পোয়ে, আসুন শুনি ।

দুগ্গা মা —
আর রাগ করিস নে বাপু
খেয়ে নে বাবা লাড্ডু টুকু ।
বেরোতে হবে জলদি করে
লটবহর সব সাথে করে ।
যেখানে সেখানে দাঁড়ালে হবে ?
খাই খাই শুনলে বাবা দেবে ।

গনু বাবু —
তাইতো আমি বলছি মাগো
একটাতে কি হবে ভেবেছো ?

দুগ্গা মা —
ওরে আমার পেটুক ছেলে
এ লাড্ডু কি কৈলাসে মেলে ?

গণু বাবু —
তবে তুমি কোথায় পেলে ,
বলতে হবে, খাব না নাহলে ।

দুগ্গা মা —
ওরে , ভীমকে বলে ঢোলকপুরে
বানিয়েছি লাড্ডু টুকরি ভরে ।
টুনটুন মাসির হাতের গুণে
এক লাড্ডুতেই পেট যাবে ভরে । ।
নে নে এবার হাঁ কর দেখি __

গণু বাবু —
বলছ কি মা জগৎজননী
তুমিও জানো ভীম কাহিনী !!
(আদুরে গলায়)
তবে, খাব আমি একটি শর্তে
ভাগ দেব না আর কাউকে ।

দুগ্গা মা —
ছি গণা , এমন বলে ?
দাদা দিদিরা কি পর হল রে !!
এতদিনের মর্ত্য-বাস
কি জানি কি খেতে পাস !
তাইতো নিয়েছি সঙ্গে করে ,
অসময়ে লাগবে বলে ।
(আদর করে )
তুই তো আমার আচ্ছা বাচ্চা
সব কিছুতেই সেরা , সাচ্চা ।
( শাসনের সুরে )
তোমার মুখে এমন কথা
আর চাই না শুনতে গণা ।

গণু বাবু —
ক্ষমা মা গো , ক্ষমা করো
আর শুনবে না এমন তরো ।
লাড্ডু লোভে বলেছি এমন
দেখলেই পেটটা করে কেমন !

ভোলে বাবার প্রবেশ —
কি রে গণা ,
এখনও তোর খাওয়া হল না ?

ভয়ের চোটে লাড্ডু নিয়ে
গপাৎ করে পুরলো মুখে ।
ঘিয়ের গন্ধে , লাড্ডুর স্বাদে
গণু সোনা আনন্দে ভাসে ।
মনে মনে ভীমকে বলে —
সামনের চতুর্থীতে , আসছি ঢোলকপুরে । ।

আপাততঃ ,
চলল গণু হাতটি ধরে
মায়ের সাথে মামার ঘরে ।
দাদা দিদি বাবাও আছে
একটু আগে মুষকও আছে ।
লটবহরে ঠাসা গাড়ি
কোথায় যে গেল লাড্ডুর হাঁড়ি !!!

ওনারা রওনা দিয়েছেন । আর আমরা ওনাদের আসার অপেক্ষায় দিন গুণছি । ।

Related posts

মেমারি বিজেপির “ফোন পে চর্চা” কর্মসূচি

E Zero Point

মেমারিতে করোনা বিপর্যয়ে টিম প্রয়াস-এর অন্নদান

E Zero Point

করোনা মোকাবিলায় তৈরি ইন্ডিয়ান এয়ার ফোর্স

E Zero Point