17/04/2024 : 8:10 AM
অন্যান্য

লকডাউনে অক্ষয় তৃতীয়া : মানব জীবনে অক্ষয় তৃতীয়ার মাহাত্ম্য

বিশেষ প্রতিবেদনঃ অক্ষয় তৃতীয়া হল চান্দ্র বৈশাখ মাসের শুক্লাতৃতীয়া অর্থাৎ শুক্লপক্ষের তৃতীয়া তিথি। অক্ষয় শব্দের অর্থ হল যা ক্ষয়প্রাপ্ত হয় না। বৈদিক বিশ্বাসানুসারে, এই পবিত্র তিথিতে কোন শুভকার্য সম্পন্ন হলে তা অনন্তকাল অক্ষয় হয়ে থাকে। হিন্দু ও জৈন ধর্মাবলম্বীদের কাছে এটি একটি বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ তিথি। পয়লা বৈশাখের মত এই তিথিতে কিছু কিছু ব্যবসায়ী খাতা ও লক্ষ্মী-গণেশ পুজো করে থাকেন।

অক্ষয় তৃতীয়ার শুভ সময় তৃতীয়া তিথি শুরু – বেলা ১১টা ৫১ মিনিট (২৫ এপ্রিল ২০২০, শনিবার) তৃতীয়া তিথি শেষ – দুপুর ১টা ২২ মিনিট (২৬ এপ্রিল ২০২০, রবিবার)

অক্ষয় তৃতীয়া সম্পর্কিত কিছু বিশ্বাসঃ
  • এটা বিশ্বাস করা হয় যে, সত্যযুগ এবং ত্রেতাযুগের প্রথম আবির্ভাব অক্ষয় তৃতীয়ায় দিনে হয়েছিল।
  • অক্ষয় তৃতীয়ার দিনে ভগবান পরশুরাম জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তিনি বিষ্ণুর ষষ্ঠ অবতার এবং সাত চিরঞ্জীবির একজন।
  • অক্ষয় তৃতীয়ার শুভ দিনে মা গঙ্গা পৃথিবীতে এসেছিলেন।
  • অক্ষয় তৃতীয়ার দিনে বেদব্যাস মহাভারত গ্রন্থ লেখা শুরু করেছিলেন।
  • অক্ষয় তৃতীয়ার শুভ লঘ্নেই বদ্রীনাথ ধামের দরজা খোলা হয়।
  • এই দিনেই মহাভারত রচনা শুরু হয়েছিল।
  • দেবাদিদেব মহাদেব এই দিন কুবেরকে অতুল সম্পদদান করেন। এই ঐশ্বর্যপ্রাপ্তি হয়েছিল সাধনার কারণেই।
  • কৃষ্ণের চন্দনযাত্রাও শুরু হয় এই দিনেই।
  • দ্রৌপদীর বস্ত্রহরণ রুখে দিয়েছিলেন কৃষ্ণ এই দিনেই।
আধুনিককালে এই তিথিতে সোনার বা রূপার গয়না কেনা হয়। মনে করা হয়, এই শুভ তিথিতে রত্ন বা জিনিসপত্র কিনলে গৃহে শুভ যোগ হবে। সুখ-শান্তি ও সম্পদ বৃদ্ধি হবে, এই আশাতেই এদিন মানুষ কিছু না কিছু কিনে থাকেন।

 

Related posts

মাতৃদিবসে শিশুদের পাশে মেমারির সুভাষ সংঘ

E Zero Point

ভারতের সব রাজ্যের জন্য ১১,০৯২ কোটি টাকা মঞ্জুর করল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক

E Zero Point

মেমারির জুজারপুর গ্রামে পাওয়া গেল প্রাচীন নারায়ণ মূর্তি

E Zero Point

মতামত দিন